সারাদেশস্বাস্থ্য

বরিশালে সরকারি দুই হাসপাতাল থেকে ২৪ দালাল আটক

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও জেনারেল হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে ২৪ জন দালালকে আটক করেছে র‌্যাব। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সহায়তায় এই অভিযান পরিচালনা করা হয়।

মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) দুপুরে র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল কাজী যুবায়ের আলম সংবাদ সম্মেলন করে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, হাসপাতাল থেকেই আমাদেরকে জানানো হয় সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের বিভিন্ন ফাঁদে ফেলে ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে যায় দালাল চক্র। তথ্য পেয়ে আমরা গোয়েন্দা নজরদারি করি এবং দালাল চক্রের দৌরাত্মের প্রমাণ পাই। তারই প্রেক্ষিতে আজ সকাল থেকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও জেনারেল হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে ২৪ জনকে আটক করি। এদের মধ্যে ১০ জন নারী রয়েছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকক দালালরা আমাদের কাছে স্বীকার করেছেন তারা এক সময় এই হাসপাতালে কর্মরত ছিলেন। বিভিন্ন অনিয়মের কারণে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের চাকরিচ্যুত করে। সেই বাদ দেওয়া কর্মচারীরা এখন বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দালালি করছেন।

কর্নেল কাজী যুবায়ের আলম বলেন, হাসপাতালে অনেক অসহায়, দুস্থ ও লেখাপড়া না জানা লোক আসে। এখানে এসে তারা কারো সহায়তা নিয়ে চিকিৎসা করাতে চান। সেই সুযোগে দালালচক্র রোগীদের ফাঁদে ফেলে জিম্মি করে টাকা-পয়সা হাতিয়ে নেন। এদের পৃষ্ঠপোষকতা করে কিছু ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও কয়েকজন ডাক্তার। দালাল চক্রের কারণে হাসপাতালে আসা রোগীরা সঠিক চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

কাজী যুবায়ের আলম বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে র‌্যাব বাদী হয়ে মামলা করবে। পাশাপাশি দালালদের দৌরাত্ম কমাতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সহায়তায় অভিযান অব্যাহত থাকবে।

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এইচএম সাইফুল ইসলাম বলেন, আমরা রোগীদের সুচিকিৎসা দিতে চাই। তারই অংশ হিসেবে এখানে আসা কোনো রোগী যেন হয়রানির শিকার হয়ে চিকিৎসা বঞ্চিত না হন সেই প্রচেষ্টা সবসময়ে ছিল। আমাদের হাসপাতালের কিছু কর্মচারী ডায়াগনস্টিক সেন্টার ব্যবসার সাথে জড়িত এবং তারাও দালাল চক্র পরিচালনা করেন এমন তথ্য জেনেছি। আমরা তাদের শনাক্তে কাজ করছি। যারা এমন কাজ করছে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের হাসপাতালে আসা রোগীদের অধিকাংশই অসহায়-গরিব। দালালদের ফাঁদে পরে এরা সর্বস্ব হারিয়ে ন্যূনতম চিকিৎসাও পাচ্ছেন না। আমরা রোগীদের সরকারিভাবে ওষুধ সরবারহ করছি। এখানে সব বিশেষজ্ঞ চিকিৎসা, সার্জন, টেকনিশিযান। আমরা চাই এখানে যারা চিকিৎসা নিতে আসবেন তারা সকলে সুচিকিৎসা নিয়ে ফিরবেন।

সংবাদ সম্মেলনে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ বরিশাল জেলার সাধারণ সম্পাদক ডা. সুদীপ হালদারসহ হাসপাতালের কর্মকর্তা ও চিকিৎসকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *