অপরাধআমাদের বাউফল

বাউফলে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও চাঁদাবাজীর অভিযোগ

এম.জাফরান হারুন ::

বাউফল উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি মো.শাজাহান সিরাজের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি শাজাহান সিরাজ অনেক আগে থেকে উপজেলার মদনপুরা ইউপির ০৮নং ওয়ার্ডভুক্ত চন্দ্রপাড়া গ্রামের আজাহার হাওলাদারের মেয়ে ফাহিমা আক্তার পারভিন (৩৫ ) কে অনেকদিন ধরে প্রেমের প্রলোভন এর ফাদে ফেলে ব্যাপকভাবে ধর্ষণ করে আসছিল।

 

পরে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে কেটে পড়েন ওই যুবলীগ নেতা শাজাহান সিরাজ। একাধিক সূত্রে আরও জানায়, পারভিন বিয়ের জন্য যুবলীগ নেতা শাজাহান সিরাজকে ধরপাকড় করলে ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে ওই নিরিহ মেয়ে পারভিনকে পুলিশের হাতে ধরিয়ে দেয়।

 

সরেজমিনে এবিষয়ে চানতে চাইলে অপরাধ তালাশ ও সিটিনিউজ সেভেন এবং বাউফল প্রতিদিনের  প্রতিবেদককে অভিযোগকারী ফাহিমা আক্তার পারভিন জানান, অনেক আগ থেকে শাজাহান সিরাজ আমাকে তার মিথ্যা প্রেমের ফাদে ফেলে ভয়ভীতি দেখিয়ে যখন খুশী তখন আমাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করতো। আমার পেটে ওর বাচ্চা এলে তাও জোরপূর্বক নষ্ট করে। আমার বাবা আমাকে অন্য জায়গায় বিয়ে দিলে সেখানেও ওর কারনে আমার বিয়ে ভেঙ্গে যায় ভেঙ্গে দেয়। আমাকে সে মিথ্যা আশা দিয়ে ০৩ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়।

 

আমি ওকে বিয়ের জন্য ধরপাকড় করলে সে আমাকে ৮০পিছ ইয়াবা দিয়ে পুলিশের হাতে ধরিয়ে দেয়। আমার ০৩ মাস জেলহাজতে থাকতে হয়। তারপর আমার ভাই আমাকে হাইকোর্ট দিয়ে ছাড়িয়ে আনে। এখন প্রতি মাসে ২-৩ বার করে হাজিরা দিতে হয়।

 

এব্যাপারে আমি নাজিরপুর ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে বললে সেখানে এসে তার সামনে বলে আমি মামলা দিয়েছি আমিই আবার উঠাব। কিন্তু এখনো ওই মামলা উঠায় না। শুধু শুধু আমাকে এই হয়রানি করে যাচ্ছে। আজ থেকে ০৩ মাস আগে আমাকে ওই শাজাহান সিরাজ তার মোটর সাইকেলে করে তুলে নিয়ে আফছের গেরেজ যায়। সেখানে একটি দোকানের সামনে রেখে বলে আমি একটু আসতেছি। সে যাওয়ার ২/৩ মিনিটের মধ্যেই ৫/৬ পোলাপান এসে আমাকে এলোপাথাড়ি কিলঘুষি মারতে থাকে। আমি তখন বোরখা পড়নে ছিলাম। মানুষজন পড়লে ওরা চলে যায়। ওই পোলাপানের মধ্যে একটা ছেলে ছিল তার নাম মিলন। সে বলেছে তারা ভাড়াটিয়া। শাজাহান সিরাজ তাদেরকে ভাড়া করে এনেছে। আমি আমার বাবাকে নিয়ে ওর বিরুদ্ধে থানায় জিডিও করেছি। সে নাকি থানায় মামলা নিতে নিষেধ করেছে। আমি তার বিচার চাই।

 

এসময় পারভিনের বাবা আজাহার হাওলাদারের কাছে যানতে চাইলে সে হাউমাউ করে কেদেঁ উঠে বলেন, আমার মেয়েকে ওই শাজাহান সিরাজ ধ্বংস করে দিয়েছে। আমি এর বিচার চাই। এপ্রসঙ্গে উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি শাজাহান সিরাজের কাছে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ওই ব্যাপারে যানতে চাইলে সে প্রতিবেদককে জানান, আমি তাকে চিনি না। এব্যাপারে আমি কিছু জানিনা।

 

এব্যাপারে বাউফল থানার অফিসার ইনসার্স (ওসি) মনিরুল ইসলাম বলেন, ওই ব্যাপারে আমি একটা অভিযোগ পেয়েছি। সাধারণ ডায়রি আকারে এন্ট্রি হয়েছে। তবে বাদি পক্ষ জোড়ালো কোন মামলার কথা বলেননি। তবে অবশ্যই ওই ব্যাপারে তদন্ত করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *