আমাদের বাউফলনাজিরপুর

বড় ডালিমায় বৃদ্ধাকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন

বাউফলে এক বৃদ্ধাকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের অভিযোগ

বাউফল প্রতিনিধিঃ
পটুয়াখালীর বাউফলে জমিজমা বিরোধকে কেন্দ্র করে ৭৭বছরের বৃদ্ধ মো: মোতাহার মুন্সী ও তার স্ত্রী ৬৫ বছরের বৃদ্ধা মোসা: আকলিমা বেগমকে মধ্যযুগীয় কায়দায় বিবস্ত্র করে নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমন ঘটনা ঘটেছে উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের (৮নং ওয়ার্ড) বড়ডালিমা গ্রামে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে জানা যায়, বড় ডালিমা গ্রামের মোতাহার মুন্সী এবং একই বাড়ীর মো: আজাহার মুন্সীর ছেলে মো: শহিদুল মুন্সী (৩৮) এর সাথে দীর্ঘদির ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। ঘটনার দিন সোমবার (১ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে মোতাহার মুন্সীর বাগানের কলা ও সুপারী নিয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে মোতাহারের স্ত্রী আকলিমা বেগমের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় আকলিমাকে বেগমকে বেধরক মারপিঠ করেন শহিদুল মুন্সী , তার স্ত্রী মোসা: মরজিনা বেগম , ছেলে মো:বাপ্পী ও ফোরকান মুন্সীর স্ত্রী মেঘনুর বেগম।

এসময় আকলিমা বেগমের আত্মচিৎকার শুনে তার অন্ধ স্বামী মোতাহার এগিয়ে আসলে তাকেও মারপিঠ করেন তারা।

পরে স্থানীয়রা তাদের দুজনকে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে।

নির্যাতিত মোসা: আকলিমা বেগম সাংবাদিকদের জানায়, আমাদের বাগানের সুপারী কলা সহ অন্যান্য ফল তারা চুরি করে নিয়ে যায়। প্রতিবাদ করলে আমাদের মারপিঠ করেন। আজকে (ঘটনার দিন) এ বিষয়ে তাদের নিষেধ করি। তাই তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে বিবস্ত্র করে বেধে মারপিঠ করেন। আমার পায়ে ব্লেড দিয়ে জগম করেন। আমার চিৎকার শুনে আমার অন্ধ স্বামী আমাকে ছাড়াতে আসলে তাকেও মারেন।

এসময় তার (আকলিমা বেগম) শরিরের ব্লেডে কাটা ক্ষতসহ বিভিন্ন স্থানে নিলাফুলা জগমের চিহৃ দেখা যায়।


এব্যাপারে মোতাহার মুন্সী একই কথা বলেন। তার শরিরেও আগাতের চিহৃ পাওয়া যায়।

এব্যাপারে নাজিরপুর ইউনিয়ন ৮নং ওয়ার্ড় ইউপি সদস্য মো: হাবিল গাজী মুঠো ফোনে জানায়, মোতাহার মুন্সীর মেয়ের কাছ থেকে ঘটনা শুনেছি। তাদের চিকিৎসা নেওয়ার জন্য বাউফল হাসপাতালে ভর্তি হতে বলছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *