আমাদের বাউফলদাশপাড়াবাউফল

বাউফলে প্রাইমারি বিদ্যালয়ের সরকারি অর্থ হরিলুটের অভিযোগ

বাউফলে প্রাঃ বিদ্যালয়ের সরকারি অর্থ হরিলুট’র অভিযোগ

ডেস্ক রিপোর্টঃ
পটুয়াখালীর বাউফলে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট হর্তাকর্তাদের বিরুদ্ধে সরকারি বরাদ্ধকৃত অর্থ হরিলুট-সহ একাধিক অনিয়ম-দূর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, বাউফল উপজেলার ৮৯নং পূর্ব দাশপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঁকা ভবনের নির্মাণ কাজ চলায় চারকক্ষ বিশিষ্ট কাঁচা ঘর নির্মাণ করার জন্য ১লক্ষ টাকা বরাদ্ধ দেয় সরকার।

বিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ বরাদ্ধের কিছু টাকা দিয়ে পুরাতন টিন ও নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে কোন রকম নড়বড়ে তিন কক্ষ বিশিষ্ট একটা ঘর নির্মাণ করেন। বাকি অর্থ ভাগ বাটোয়ারা করে আত্মসাৎ করেন সংশ্লিষ্টরা।

আরো জানা যায়, বিদ্যালয়ে ১০টি কাঁঠ গাছ বিক্রি করে বিক্রিত টাকা সরকারি কোষাগারে জমা না দিয়ে আত্মসাৎ করে একই মহল।

অন্যদিকে নিময় নীতির তোয়াক্কা না করে , স্বজনপ্রীতির মাধ্যমে মোসাঃ বুলবুল নামের এক মহিলাকে খন্ডকালীন শিক্ষক নিয়োগ দেয় বিদ্যালয় সংশ্লিষ্টরা।

এসব অনিয়ম – দূর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা দেবীগিরানী সাংবাদিকদের জানায়, বরাদ্ধের ১লক্ষ্য টাকার সরকারি ভ্যাট দিয়ে ৭০ হাজার টাকা পাওয়া গেছে ।

সরকারি গাছ বিক্রির ব্যাপারে জানতে চাইলে সে জানায়, ৩টি গাছ কাঁটা হয়েছে। যা দিয়ে স্কুল ঘর নির্মাণ করা হয়েছে।

খন্ডকালিন শিক্ষক নিয়োগের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ১হাজার টাকা বেতন হিসাবে বুলবুল নামে ঐ শিক্ষিকাকে ১৫দিন আগে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে বুলবুল বলেন, ১৫’শ টাকা বেতনে ১মাস আগে তাকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

এব্যাপারে জানতে চাইলে বিদ্যালয়ের সভাপতি এ.এস.এম আবদুল হাই বলেন, এসব ব্যাপারে সে কিছু জানে না। সে ওমরা হজ্ব পালনের জন্য দেশের বাহিরে ছিলেন।

এব্যাপারে জানতে চাইলে বাউফল শিক্ষা অফিসার রিয়াজুল হক বলেন, খন্ডকালীন শিক্ষক নিয়োগের ব্যাপারে আমি কিছু জানি না। বিষয়টি খোজ নিয়ে ব্যবস্থা নিবো।

বাউফল উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিজুস চন্দ্র দে এব্যাপারে জানায়, অভিযোগ তদন্ত করা হবে। সত্যতা পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *