আন্তর্জাতিক

বাঙালিদের জন্য ইমরানকে নিজের বাড়ি ছেড়ে দিতে বললেন সিন্ধু মন্ত্রী

পাকিস্তানে জন্ম নেয়া বাংলাদেশিদের নাগরিকত্ব দেয়ার ঘোষণার বিরোধিতা করেছেন সিন্ধুর প্রাদেশিক সরকারের স্থানীয় সরকার মন্ত্রী সাঈদ গনি। তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের মধ্যে যদি আফগান ও বাঙালি শরণার্থীদের সন্তানদের চাকরি নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা থেকে থাকে, তাহলে তিনি ‘বনি গালা’ এলাকার নিজের বাড়ির দরজা তাদের জন্য খুলে দিতে পারেন।

সিন্ধু প্রদেশের করাচিতে লাখ লাখ বাঙালি শরণার্থী বাস করেন। এদের অনেকেরই জন্ম পাকিস্তানে। ইমরানের ঘোষণা অনুযায়ী সেদেশে জন্ম নেয়া বাংলাদেশি ও আফগান শরণার্থীদের সন্তানরা চাকরির সুযোগ পাবেন।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান গতকাল (রোববার) করাচিতে বাংলাদেশি ও আফগান শরণার্থীদের সন্তানদের প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, ৪০ বছর ধরে এরা এই শহরে আছেন। তাদের সন্তানরাও এই শহরেই বড় হচ্ছে, কিন্তু তাদের নেই কোনো পাসপোর্ট কিংবা কোনো পরিচয়পত্র। এগুলো না থাকলে চাকরি হয় না, আর চাকরি হলেও তাদের বেতন হয় অর্ধেক।

ইমরান বলেন, অনেক আফগান এবং বাঙালি গত ৪০ থেকে ৫০ বছর ধরে এখানে বসবাস করছেন। এখানে তাদের ছেলে-মেয়েদের জন্ম হয়েছে। ইনশাআল্লাহ আমরা তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র এবং পাসপোর্ট দিতে পারব।

বাঙালি ও আফগান নাগরিকদের জাতীয়তার অনুমোদন দিয়ে প্রাদেশিক আইন এবং অধ্যাদেশ যুক্ত করা হবে। আর এখানে মূলত গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে দেশটির বাণিজ্যিক রাজধানী করাচিকেই।

পাকিস্তানে বসবাসরত বাঙালিদের অবস্থার বর্ণনা করে ইমরান খান বলেন, পুরো প্রজন্ম (বাঙালি এবং আফগান) এখানে জন্মগ্রহণ করেছে এবং বেড়ে উঠেছে। কিন্তু তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র এবং পাসপোর্ট নেই। যার কারণে তারা চাকরি পাচ্ছে না। যেটা শেষ পর্যন্ত তাদের সন্ত্রাসসহ বিভিন্ন অপরাধের দিকে ঠেলে দেবে।

করাচি হলো পাকিস্তানের সবচেয়ে জনবহুল শহর। এখানে দেড় কোটির বেশি মানুষ বসবাস করে। বিগত কয়েক দশকে এই অঞ্চলে রাজনৈতিক এবং অপরাধ কার্যক্রম বেড়ে গেছে। বিশেষ করে সড়ক সন্ত্রাসের মতো অপরাধগুলো।

এই নগরীতে ২০ লাখের বেশি আফগান শরণার্থী এবং বাঙালি অভিবাসী বসবাস করে। পাকিস্তানে ১৬ লাখ নিবন্ধিত এবং ১০ লাখের বেশি অবৈধ আফগান শরণার্থী রয়েছে।

ইমরান খানের এই ঘোষণা বিপুল পরিমাণ আফগান এবং বাঙালিদের জন্য সুখবর। বিশেষ করে বিহারীদের জন্য। কেননা ১৯৪৭ সালে পাকিস্তান সৃষ্টির সময় প্রথবারের মতো তারা ভারত ছেড়ে বাংলাদেশ অর্থাৎ তৎকালীন পূর্ব-পাকিস্তানে আসে। এরপর ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সময় বাংলাদেশ ছেড়ে পাকিস্তানে যায়। পার্সট্যুডে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *