আন্তর্জাতিক

স্কটল্যান্ডের প্রথম মুসলিম নেতা, সরকারি বাসভবনে উঠেই নামাজে ইমামতি করলেন

স্কটল্যান্ডের প্রথম মুসলিম ফার্স্ট মিনিস্টার হিসেব শপথ নিয়েছেন স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টির নবনির্বাচিত নেতা হামজা ইউসুফ। তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ব্রিটেনের মুসলিম কমিউনিটির নেতা এবং এমপিরা।

আরব নিউজ বলছে, ইউসুফের এই বিজয় ব্রিটেনের রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে মুসলমানদের অবস্থান আরো সংহত করলো। এর আগে সাদিক খান মুসলমানদের অবস্থান জোরালো করেছেন পর পর দুই মেয়াদে লন্ডনের মেয়র নির্বাচিত হয়ে। তার আগেও সাফল্য আছে। ২০১৯ সালের সাধারণ নির্বাচনে রেকর্ড ১৮ জন মুসলিম এমপি নির্বাচিত হয়েছেন।

ব্রিটিশ রাজনীতিতে ঝড় তুলেছেন স্কটল্যান্ডের প্রথম মুসলিম নেতা। তার বিজয়ে স্পষ্ট হয়ে গেছে, ব্রিটেন নেতৃত্বে জাতিগত বৈচিত্র্য আসতে শুরু করেছে। দ্য টাইমস অব ইসরায়েল

হামজা ইউসুফ বৃহস্পতিবার দেখা করেছেন ব্রিটেনের প্রথম হিন্দু প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের সঙ্গে। সাক্ষাত হয়েছে পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত মেয়র সাদিক খানের সঙ্গে। আর হামজা ইউসুফ নিজেও পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত, তার পরিবার ৬০ বছর আগে পাঞ্জাব থেকে স্কটল্যান্ডে গেছে। এই তিনজন নির্বাচিত হওয়ার মধ্যদিয়ে ব্রিটেন সাম্রাজ্যবাদের ঐতিহাসিক অতীত থেকে বহুজাতিক নেতৃত্বে প্রবেশ করলো। এএফপি

আতালাইয়ার জানাচ্ছে, ফার্স্ট মিনিস্টার হামজা নতুন সরকার গঠন করেছেন। দেশকে উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নেওয়ার অঙ্গীকার করেছে নতুন সরকার। তবে মন্ত্রী ও কর্মকর্তা নির্বাচন নিয়ে দলের অভ্যন্তরে চাপের মুখে পড়তে হতে পারে নতুন নেতাকে।

সব কিছু ছাপিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে একটি ছবি। দেশের প্রধান হিসেবে যে বাসভবন পেয়েছেন হামজা ইউসুফ, সে বাড়িতে উঠে প্রথমেই তিনি নামাজ আদায় করেছেন। এই ছবিটি ফেসবুকে শেয়ার করেছেন বাংলাদেশ মানবাধিকার সংস্থার মহাসচিব মোজাহেরুল হক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *