বাংলাদেশ

চট্টগ্রামে সমাবেশ: তারেক রহমানের ফাঁসির দাবি

একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা করে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা এবং গণহত্যার পরিকল্পনার অভিযোগে তারেক রহমানের ফাঁসির দাবি এসেছে চট্টগ্রামের এক সমাবেশ থেকে। একইসঙ্গে এই মামলার সব আসামিরও ফাঁসি দেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে।

শনিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে চট্টগ্রাম নগরীর সিইপিজেড মোড়ে এক সমাবেশে এসব দাবি তুলে ধরেছেন নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন। সমাবেশ মঞ্চের পাশে বানানো হয় প্রতীকী ফাঁসির মঞ্চ।

সুজন বলেন, ‘একুশে আগস্টের গ্রেনেড হামলার মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। সাক্ষ্যপ্রমাণে সন্দেহাতীতভাবে উঠে এসেছে যে, তারেক রহমানের প্রত্যক্ষ পরিকল্পনা ও তত্ত্বাবধানে এই নৃশংস হামলা হয়েছে। কোনো সন্দেহ নেই যে, তারেক জিয়ায় এই গণহত্যার মূল পরিকল্পনাকারী। তার টার্গেট ছিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগ এবং দেশ থেকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ধারা ধ্বংস করে দেওয়া। তারে টার্গেট ছিল বাংলাদেশ রাষ্ট্রকে পুরোপুরি সাম্প্রদায়িক পাকিস্তানি ভাবধারায় নিয়ে যাওয়া।’

তিনি বলেন, ‘এই ন্যাক্কারজনক হামলার মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে তারেক জিয়া ও তার সহযোগীরা এবং বিএনপি-জামায়াত এই রাষ্ট্র ও গণতন্ত্রের শত্রু। এই অশুভ শক্তি যতদিন থাকবে ততদিন রাষ্ট্র, গণতন্ত্র ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে যাবে। আমি এই সমাবেশ থেকে তারেক জিয়ার ফাঁসির দাবি করছি। তার সঙ্গে আরও যাবার একুশে আগস্টের গ্রেনেড হামলায় জড়িত ছিল প্রত্যেকের ফাঁসির দাবি করছি।’

চট্টগ্রাম নগরীর বন্দর আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী খোরশেদ আলম সুজন আরও বলেন, ‘দেশবাসীকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে- তারেক জিয়া ও মুফতি হান্নান চক্রকে কি এগিয়ে যেতে দেবেন? শেখ হাসিনাসহ মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে হত্যার ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতে দেবেন? আসুন, আমরা ইস্পাত কঠিন ঐক্যের প্রাচীর গড়ে এই অশুভ শক্তিকে পরাজিত করি।’

‘জাগ্রত ছাত্র-যুব জনতা’ নামে একটি সংগঠনের উদ্যোগে এই সমাবেশ হয়েছে। সংগঠনের আহ্বায়ক এ এস এম জাহিদ হোসেনের সভাপতিত্বে এতে আরও বক্তব্য রাখেন- নগর মহিলা লীগের সভানেত্রী হাসিনা মহিউদ্দিন, নগর আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মশিউর রহমান চৌধুরী, জামশেদুল আলম চৌধুরী, ইপিজেড থানা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক হাজী হারুনুর রশীদ, যুগ্ম-আহবায়ক আবু তাহেরসহ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *