বাংলাদেশ

প্রধানমন্ত্রীকে ফেইসবুকে কূটুক্তিকরা চবি শিক্ষক মাইদুলের জামিন

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের মামলায় গ্রেফতার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সমাজতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাইদুল ইসলামকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) বিচারপতি ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ।

মাইদুল ইসলামের ৬ মাসের জন্য জামিন দেন আদালত।

এর আগে, সোমবার (৮ অক্টোবর) চট্টগ্রামের জেষ্ঠ্য বিচারিক হাকিম এস এম শহীদুল্লাহ কায়সারের আদালত মাইদুল ইসলামের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। জেলা পুলিশের পরিদর্শক (প্রসিকিউশন) বিজন কুমার বড়ুয়া পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে ফেসবুকে কটূক্তির অভিযোগে গত ২৩ জুলাই চট্টগ্রামের হাটহাজারী থানায় চবি শিক্ষক মাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনের ৫৭ (২) ধারায় মামলা করেন চবি ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সদস্য ইফতেখারুল ইসলাম।

মামলা দায়েরের পর হাইকোর্ট থেকে আট সপ্তাহের জামিন নেন মাইদুল। ওই জামিনের মেয়াদ শেষে ২৪ সেপ্টেম্বর মাইদুল চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ মো. ইসমাইল হোসেনের আদালতে আত্মসর্পণ করলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এরপর গত ২৫ সেপ্টেম্বর এই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কোটা সংস্কারের আন্দোলনকারীদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছিলেন এই শিক্ষক।

থানায় মামলা দায়েরের আগে মাইদুল ইসলামসহ দুজন শিক্ষককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছিল ছাত্রলীগ। হুমকির মুখে দুই শিক্ষক ক্যাম্পাসে যাওয়া বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছিলেন। এমনকি মাইদুল ইসলাম চবি ক্যাম্পাসের বাসাও ছাড়তে বাধ্য হয়েছিলেন।

এর আগে, গত ১৭ জুলাই সমাজতত্ত্ব বিভাগের মাইদুল ইসলাম এবং যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক খ. আলী আর রাজীকে চাকরিচ্যুত করার দাবি জানিয়ে উপাচার্যকে স্মারকলিপি দিয়েছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সভাপতি আলমগীর টিপু।

শিক্ষক মাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলার বাদী ইফতেখারুল ইসলাম চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী। তিনি ছাত্রলীগ নেতা আলমগীর টিপুর অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *