মতামত

পটুয়াখালী-কলকাতা ভ্রমণেচ্ছুকদের জন্য কিছু তথ্য,টিপস

কলকাতা ভ্রমণেচ্ছুকদের জন্য কিছু তথ্য, টিপস
—————————————————-

ড.মোঃআবদুল ওয়াহাব মিয়া//

পাসপোর্ট ও ভিসা থাকলে— পটুয়াখালী থেকে ঢাকার চেয়ে কম খরচে ঘুরে আসতে পারেন কলকাতা।

* পটুয়াখালী – ঢাকা, যাতায়াতে লঞ্চ কেবিন ভাড়া পড়বে অন্তত ১০০০+১০০০ = ২০০০ টাকা।
* কিন্তু পটুয়াখালী – কলকাতা মাত্র ১৬০০ টাকা (বাসভাড়া বেনাপোল পর্যন্ত ৪৫০ টাকা +ইমিগ্রেশন ৪২ টাকা+ ট্রাভেল ট্যাক্স ৫০০ টাকা+পেট্রাপোল বা হরিদাসপুর থেকে বনগাঁ রেল স্টেশন ৩০ রুপি+বনগাঁ থেকে কলকাতা শিয়ালদা স্টেশন ২০ রুপি+ শিয়ালদা থেকে নিউমার্কেট ৬ রুপি= ১১০০ টাকার মতো।)+
* ফেরার পথে কোন ট্যাক্স নাই মানে শুধু যাতায়াত ভাড়া অর্থাৎ ভারত অংশে ৬+২০+৩০=৫৬ রুপি এবং বাংলাদেশ অংশে ৪৫০টাকা। ৫০০ টাকার মতো।
* বর্তমানে বাংলাদেশী ১০০ টাকায় ৭৮ রুপি এবং ১০০ রুপিতে ১২৫ টাকা পাওয়া যায় (পরিবর্তনশীল)।
* ইমিগ্রেশনে উভয় অংশেই দালালে ভরপুর। ফরমে যে চার/পাঁচটা তথ্য পূরণ করতে হয়, তা নিজেই করতে পারেন। তবে ওদের সাহায্য নিলে ১০ টাকার বেশি দেবেন না।
* চাকরিজীবীরা অফিস থেকে অবশ্যই ছাড়পত্র নেবেন। নাহলে ইমিগ্রেশনে ঝামেলা করে টাকা আদায় করতে চাইবে।
* কলকাতায় বাংলাদেশীরা সাধারণত নিউমার্কেটের পূর্ব পাশে মারকুইস স্ট্রিট বা মির্জা গালিব স্ট্রিটে থাকেন (৩ মিনিটের পথ)। বাংলাদেশী বাসগুলোও সেখান থেকেই ছাড়ে। সেখানে প্রচুর সংখ্যক থাকা ও খাবার হোটেল আছে। আবাসিক হোটেলগুলোর ভাড়া মানভেদে ৪০০ থেকে শুরু করে কয়েক হাজার টাকা পর্যন্ত। দরাদরি করে নিতে হবে, দালাল আছে।
* ডলার ভাঙানোর দোকান থেকে রিসিট নিবেন। নাহলে ফেরার পথে ইন্ডিয়ান ইমিগ্রেশনে এই ছুতায় ঘুষ চাইবে।

(দু’বার কলকাতা ভ্রমণের অভিজ্ঞতা থেকে)

লেখকঃ সহকারী অধ্যাপক, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ,পটুয়াখালী সরকারি মহিলা কলেজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *