অপরাধ

মাদকের জন্য সন্তান বিক্রি!

বাবা সন্তানের সম্পর্ক সেতো আত্বার আত্বা। নিজের মৃত্যুর বিনিময় হলেও সন্তানকে রাখতে চায় নিরাপদ। তার উপরে কন্যা সন্তানের প্রতি বাবাদের দুর্বলতা কতটা তা বলার অপেক্ষা রাখেনা। কিন্তু আমাদের সমাজ এমন এক সময় অতিবাহিত করছে যেখানে নিজের কন্যাকেও বিক্রয় করতে মনুষত্বে সামান্য আঘাত করেনা। হা এমনি ঘটনা ঘটেছে কক্সবাজারে।

মাদকের টাকা জোগাড় করতে স্ত্রীকে না জানিয়ে নিজের দেড় বছরের শিশু কন্যাকে বিক্রি করে দেন রেজাউল। এক সপ্তাহ যাবৎ কোলের সন্তানকে খুঁজে না পেয়ে স্ত্রী রাবেয়া যখন পাগলপ্রায় তখন লোকমুখে জানতে পারেন স্বামীর পশুত্বের কথা।

পরে রাবেয়া সন্তান জান্নাতুল মেহেরাজকে ফিরে পেতে পুলিশের শরণাপন্ন হন। পুলিশ রেজাউলের নির্দয় কাণ্ডের কথা শুনে তাকে আটক করে। এ সময় তার কাছ থেকে ইয়াবাও উদ্ধার করা হয়। শেষে রেজাউলের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে শুক্রবার (১১ আগস্ট) সকালে মহেশখালী উপজেলার একটি গ্রাম থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে পুলিশ।

রাবেয়া সাংবাদিকদের বলেন, ‘ আট দিন আগে আমি অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করতে গেলে গোপনে মেয়ে জান্নাতুল মেহেরাজকে চুরি করে নিয়ে যায় মাদকাসক্ত স্বামী রেজাউল। এরপর অনেক খোঁজাখুঁজি করেও পাচ্ছিলাম না আমার সাতজনমের স্বপ্ন বুকের মানিককে । হঠাৎ বৃহস্পতিবার বিকেলে স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে খবর পাই শিশুটিকে মহেশখালীর শাপলাপুরের বারিয়াপাড়ায় এক ব্যক্তির কাছে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে।

রেজাউল ওই ব্যক্তিকে জানিয়েছিল, সে চলার পথে শিশুটিকে কুড়িয়ে পায়। তার কথা বিশ্বাস করে ওই ব্যক্তি শিশুটিকে হেফাজতে নেন। বিনিময়ে রেজাউলকে হাজারখানেক টাকা দেন। ওই টাকা দিয়ে ইয়াবা কিনে সেবন করছে রেজাউল।

পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পুলিশের কাছে গিয়ে বিস্তারিত জানাই। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে রেজাউলকে ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে। আট দিন পর আজ (শুক্রবার ১১ আগস্ট) সকালে পুলিশের সহায়তায় কোলের সন্তানকে উদ্ধার করে নিয়ে আসি।

চকরিয়া থানার এসআই গাজী মঈন উদ্দিন বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর প্রথমে রেজাউলকে ৩৩ পিস ইয়াবাসহ আটক করা হয়।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, মাদকাসক্ত রেজাউলের নিজের সন্তান চুরি করে বিক্রির ঘটনায় প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। একই সঙ্গে ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় রেজাউলের বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে।

আইএমটি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *