পাঁচমিশালী

কিডন্যাপার ও নোয়াখাইল্লা! হাসতে হাসতে দম বন্ধ হয়ে যাবে।

গ্রন্থনা: মো.এনামুল হক এনা//

কিডন্যাপার : আঙ্কেল আপনার পোলারে আমরা কিডন্যাপ করেছি।
আঙ্কেলঃ আঁন্নেরা হেতেরে কিডন্যাফ কইচ্চেন কিল্লাই। সিদা মারিলান। হেতে আঁর জীবনডা তেনাতেনা করিলাইছে। বুচ্চেননী, ক্যান!
কিডন্যাপারঃ দেখুন আমি কিন্তু কালা মাস্তান। ত্রিশ লাখ ট্যাকা দিবেন নাইলে পোলারে মাইরা ফালামু।
আঙ্কেলঃ আঁন্নে বাংলা বুজেন নানি ? অফদার্থ পুৎ আঁর, মাতাবরা গবর। হেতারে আই মারনের লাই কত ছেষ্টা কইচ্চি। ফুলিশের ডরে মারিনো।
কিডন্যাপারঃ আপনের একটাই পোলা, ভাইবেন। আচ্ছা দশ লাখ ট্যাকা দেন।
আঙ্কেলঃ অমানুষ পুৎ এউজ্ঞাই যথেষ্ট। বাই, কথা কম কাম বেশী, বুচ্চেন নানী !
কিডন্যাপারঃ আচ্ছা এক লাখ ট্যাকা দেন। নাইলে আপনার পোলার হাত পা ভাইঙ্গা দিমু।
আঙ্কেলঃ আই হেঁতের আত পাছ বার বাঙ্গচি। তিন বার ফা বাঙ্গচি। গুলি করারলাই বন্ধুক লইছি। হেতের মা, আঁরে আলগাদি ধরি কয় ফুলিশ আন্নেরে ধরি লইয়া যাইবো। আঁন্নেরা হেতেরে মারিলাইলে, আর বর উপখার হইবো। বুচ্চেন নানী ?
কিডন্যাপারঃ আঙ্কেল, ফাইনাল ডিল ১০ হাজার ট্যাকা দেন।
আঙ্কেলঃ আঁরে ফাগলা কুত্তা কামড়াইছেনি ?
কিডন্যাপারঃ
আঙ্কেল, দুদিন ধইরা ভাত খাইনা ভাতের জন্য এক হাজার ট্যাকা দেন, প্লিজ।
আঙ্কেলঃ
মাফ ছাই ।
কিডন্যাপারঃ
আঙ্কেল, আপনার পোলারে পাঠামু সিএনজি ভাড়া তিনশ ট্যাকা দেন।
আঙ্কেলঃ
আঁই কইছি না, হেতেরে মারিলান! আন্জুমান হেতেরে বিনা ফইসায় কবর দিবো। বুচ্চেন নানী!
“কিডন্যাপারা ছেলেটিকে একটি চিঠি দিয়ে মুক্ত করে নিজেরাই আত্মহত্যা করলো।”
চিঠিতে লেখা ছিলোঃ
“হেইতেগো কাছে হেরে গেলাম”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *