জীবনযাপনপাঁচমিশালী

যেসব অবিশ্বাস্য ক্ষমতার অধিকারী ব্রিটেনের রাণী

রাজাদের যুগ নেই তবু পৃথিবীতে রয়ে গেছেন রাণী। রাণীর যেসব বিশেষ ক্ষমতা রয়েছে তা শুনলে বিশ্বাস করা যায় না। তবে ব্রিটেনে এখনো সেই চল রয়ে গেছে।

রাণী যুক্তরাজ্যের রাণী দ্বিতীয় এলিজাবেথ এমন অনেক ক্ষমতা ভোগ করেন, যা শুধু তার জন্যই। তার অনুমোদন না পেলে, আইন পাস হওয়ার উপায় নেই। তিনি ক্ষুব্ধ হলে, ফেলে দিতে পারেন অস্ট্রেলিয়ার সরকারকে। আর্থ কুইন বলা হয় ব্রিটেনের রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথকে। বিশ্বের ১৬টি সার্বভৌম রাষ্ট্রের রানী ও রাষ্ট্রপ্রধান তিনি।

কিছুদিন আগেই পার করলেন সিংহাসনে আরোহণের ৬০ বছর। আর এমন কিছু ক্ষমতা রয়েছে যা বিশ্বের অন্য কোন রাষ্ট্রপ্রধানরা পান না।
পাসপোর্ট ছাড়াই তিনি ঘুরে বেড়াতে পারেন সারা বিশ্বে। এমনকি কোনো ড্রাইভিং লাইসেন্সও তার প্রয়োজন হয় না।

টেমস নদীর সব রাজহাঁসের মালিক যেমন তিনি, ঠিক তেমনি ব্রিটেনের সব ডলফিনের মালিকানাও তার।

বছরে দু’বার জন্মদিন পালিত হয় তার। একজন ব্যক্তিগত কবিও রয়েছেন রানী এলিজাবেথের।

ব্রিটেনের সব আইন সই করেন তিনি।

শাসনকর্তা এবং সরকার নিয়োগ দেয়ার দায়িত্বও তারই।

ঠিক তেমনি সম্পূর্ণ অষ্ট্রেলিয়ান সরকারকে বরখাস্ত করার ক্ষমতাও রয়েছে রানীর।

ইংল্যান্ডের ধর্মের প্রধানও তিনি।

প্রসিকিউশনের ক্ষমতা নেই তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ করার।

আর মাত্র চার বছর শাসনভার পালন করলেই তিনি হবেন বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে শাসন করা রানী।

রানির নামে লাইসেন্স ইস্যু হলেও গোটা ব্রিটেনে তিনিই একমাত্র ব্যক্তি, গাড়ি চালানোর জন্য যার কোনও লাইসেন্সের প্রয়োজন নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *