রাজনীতি

১২শ মামলায় গ্রেপ্তার ১৫শ, আসামি ৯১ হাজার : রিজভী

আন্দোলন শুরুর আগেই সারাদেশে বিএনপির নেতাকর্মীরা গ্রেপ্তার ও পুলিশি হয়রানির শিকার হতে শুরু করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

বৃহস্পতিবার (৬ সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টায় বিএনপির নয়াপল্টন দলীয় কার্যালয়ের নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এই অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেন, ঈদের কয়েকদিন আগে থেকে এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যমতে সারাদেশে বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ১২০০ এর বেশি মামলা হয়েছে, গ্রেপ্তার করা হয়েছে দেড় হাজারের বেশি নেতাকর্মীকে। এসব মামলায় নাম উল্লেখ করা আসামির সংখ্যা ১১ হাজার এবং অজ্ঞাতনামা আসামি প্রায় ৮০ হাজার।

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘হুমকিবাজ আওয়ামী মন্ত্রীরা আবারও একতরফা নির্বাচন করার জন্য দেশব্যাপী জাল ফেলেছে। বিগত কয়েক বছরে আওয়ামী চেতনাধারী আইনশৃঙ্খলা বাহিনী গড়ে তোলা হয়েছে।’ শেখ হাসিনা নির্বাচন ‘ম্যানেজ’ করার জন্য সেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিষ্ঠার সাথে কাজে লাগাচ্ছেন বলে অভিযোগ রিজভীর।

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী আরও বলেন, শেখ হাসিনার অধীনে যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে সেই নির্বাচনগুলো ‘জালিয়াতি নির্বাচন’ হিসেবেই বিশ্বব্যাপী পরিচিতি লাভ করেছে। তিনি আরও বলেন, ‘জনগনের নীরব ক্ষোভ প্রতিদিন বেড়েই চলছে। সরকারবিরোধী দলের ওপর যত জুলুম করছে ততই সরকারের পতন ঘনিয়ে আসছে। এছাড়াও, অশান্তির আগুনে ভিতরে-ভিতরে মানুষ দগ্ধ হচ্ছে। জনগনের সাথে প্রতারনার মাশুল সরকারকে দিতেই হবে।’

গ্রেফতারকৃত নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তি চেয়ে রিজভী বলেন, জেলে গেলে মানুষের স্পৃহা বেড়ে যায়। যাদের স্বজন, ভাই, বন্ধুকে সরকারি বাহিনী গ্রেফতার করেছে তার ক্ষোভ সংক্রমিত হয়ে অন্যদের মাঝেও ছড়িয়ে পড়বে। এর মাধ্যমে বিএনপির আন্দোলন আরও বেগবান হবে বলেও মনে করেন তিনি।

এসময় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি এবং তার উন্নত চিকিৎসার জন্যে সরকারকে নমনীয় হতেও আহ্বান জানান রিজভী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *